1. admin@dailyteligraf.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৮:২৩ অপরাহ্ন

সেরারা তো সবসময়ই সেরাই হয়

অনলাইন ডেস্ক
  • সময় : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১
  • ১৫ বার পঠিত

সেরারা তো সবসময়ই সেরাই হয়..

ভালোর সব কিছুই ভালো। ভালোর সুনাম সর্বত্রই বিরাজমান। তোমনি এক সেরার কথা আজ আপনাদের বলব। পঞ্চগরের বোদা উপজেলার কলেজ পারার অতীব সম্ভাবনাময়ী ও প্রতিভান নারী ফুটবলার “”নুশরাত জাহান মিতু””। মিতু বোদা উপজেলা ফুটবল একাডেমির একজন খেলোয়াড়। তাকে শুধু খেলোয়াড় বললে হয়তো ভুল হবে, মিতুকে সেই দলের প্রান ভূমরা বলা যেতে পারে। এই বোদা উপজেলা ফুটবল একাডেমির প্রত্যেকটি বিজয়ই যেন নির্ধারন হয় মিতুর পায়ে। মিতু এমন এক খেলোয়াড়, প্রত্যেকটা ম্যাচেই ১-২-৩-৪ টি কোরে গোল থাকেই। সম্প্রতি শেক ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ বালিকা অনুর্ধ -১৭ তে খেলেছে। ইউনিয়ন পর্যায়ের পাশাপাশি উপজেলা পর্যায়ে ও গতকাল অনুষ্ঠিত হওয়া জেলা পর্যায়ের বিজয় ও হয়েছে তারি হাত ধরে। জেলা পর্যায়ের ফাইনালে বোদা উপজেলা ফুটবল একাডেমি ৪ – ০ গোলের ব্যাবধানে জয় লাভ করে। তার পা থেকেই সবকয়টি গোল অর্থাৎ ৪ টি গোলই আসে। প্রতিপক্ষকে তার দেওয়া ৪টি গোলই তাদের বিজয় এনে দিয়েছে। জেলা পর্যায়ে মিতু “সেরা গোলদাতা ও সেরা খেলোয়াড়” নির্বাচিত হয়েছে। এই সফলাতার কারিগর হিসেবে আমি “মোফাজ্জল হোসেন বিপুল” (প্রতিষ্ঠাতা ও টিম ম্যানেজার ও একই সাথে কোচ) কে অবিহিত করছি। তারই অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল মিতু ও তার সহযোগীরা। আমি এ-আর প্রিন্স বিপুল ভাইকে এমন দক্ষ ফুটবলের কারিগর তৈরিতে ও তৃনমূলের ফুটবলরদের নিয়ে সচেষ্ট থাকার জন্য জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি চাই তার হাত ধরেই যেন পঞ্চগড়ের নারী ফুটবল এগিয়ে যাক এবংকি মিতুর মতো আরো প্রতিভাবান প্রান ভূমরার জন্ম হোক। মিতুর প্রতি আমি নিজে এবংকি সারা দেশবাসী আশাবাদী, সে আরো ভালো কিছু করুক,আরো ভালো খেলা উপহার দিক, আরো সামনের দিকে এগিয়ে যাক এবংকি বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে সারা বিশ্বের সামনে প্রতিনিধিত্ব করুক। আমি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি বাংলাদেশের প্রত্যেকটি কোনার প্রতিভাবানদের প্রতি সুনজর রাখার জন্য এবংকি মিতুর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে। হয়তো তৃনমূলে এমন অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড়ের প্রতিভা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে সযত্নের অভাবে। আমি মনে করি মিতুর যে ফুটবলে পারদর্শিতা তাকে আরো ভালো ও উন্নত অনুশীলনে রাখলে হয়তো সে নিজেকে দেশের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত করতে সক্ষম হবে। এছাড়াও দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনতে সক্ষম হবে। আমি নিজে এবং তার পরিবার বর্গ এবংকি সমগ্র পঞ্চগড় বাসী তার প্রতি আশাবাদী ও তার শুভাকাঙ্ক্ষী । এককথায় সারা বাংলাদেশের মানুষ এই পঞ্চগড়ের নারী ফুবলের প্রান ভূমরা মিতুর প্রতি আশাবাদী। আমি পিতা মাতাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই এমন একজন সন্তান/সোনার ফসলকে পৃথিবীতে আনার জন্য। আমি মিতুর মাকে রত্নগর্ভা ও তার পিতাকে রত্নগর্ভ বাবা বলে আক্ষাইত/অভিহিত করছি। যাকিনা না করলেই নয়। তারা উক্ত সম্মান পাবার যোগ্য বলে আমি মনে করি। বাংলার প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে যেন এমন একেকটি মিতুর জন্ম হয় এমনটি প্রত্যাশি দেশবাসী। আমি সারা দেশবাসীর কাছে মিতুর জন্য প্রাণঢালা দোয়া প্রত্যাশা করছি। জয় বাংলা, জয় ফুটবলের জয়, তৃনমূলের ফুটবলের জয় হোক।

এআইএস/ এমাআর

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© সর্স্ববত্ব সংরক্ষিত © ২০২০ ডেইলি হক কথা
Theme Customized BY Shakil IT